আদা চা? আদা চায়ের এত উপকারিতা!

0
550
আদা চায়ের উপকারিতা

বিশেষজ্ঞরা বলেন, আদাতে প্রচুর ভিটামিন সি, ম্যাগনেশিয়াম ও অন্যান্য খনিজ থাকে বলে শরীরের জন্য উপকারী। চলুন, জেনে আসি আদা-চায়ের কিছু গুণের কথা:

১. বিতৃষ্ণা বা বমি ভাব দূর করতে এককাপ আদা-চা পান করে নিতেই পারেন৷ মোশন সিকনেস বা গতিজনিত অসুস্থতার জন্য উপকারী হতে পারে এক কাপ আদা-চা। ভ্রমণের আগে আপনি যদি এক কাপ আদা-চা খেয়ে নেন, তাহলে মোশন সিকনেসের কারণে বমি বমি ভাব কমে যাবে। এ ছাড়া মাথাব্যথা কমাতে দারুণ কার্যকর এই চা।
২. অনেক সময় খাওয়ার কারণে পেটে অস্বস্তি বা খারাপ লাগতে পারে। এমন পরিস্থিতিতে এক কাপ গরম আদা-চা খেয়ে নিন। সঙ্গে সঙ্গে উপকার পাবেন। খাবার দ্রুত হজমেও সাহায্য হবে। প্রয়োজনের অতিরিক্ত খাবার খেয়ে যদি পেট ফুলে গিয়ে থাকে তবে এক কাপ আদা চা পান করলে স্বস্তি পাবেন৷
৩. হজম প্রক্রিয়া উন্নত করে আদা সরাসরি হজমের সমস্যা দূর করতে সহায়তা করে। পেট খারাপ বা পেট ব্যথা হলে কী খাবেন বুঝতে পারেন না। এক কাপ আদা-চা খেয়ে নিন। পেট ভাল থাকবে।
৪. আদা-চা অবসাদ দূর করে শরীর ও মনে চাঙা ভাব আনে।
৫. মাত্র এক কাপ আদা-চা মানসিক চাপ ও অস্থিরতা কমিয়ে দিতে পারে। আদার রস মানসিক চাপ ও উত্তেজনা হ্রাস করতে সাহায্য করে৷ স্ট্রেস কমানোর জন্যও এক কাপ আদা-চার জুড়ি মেলা ভার।

আরও পড়ুনঃ   অর্শ বা পাইলসের সমস্যা সমাধানে ঘরোয়া ১০ উপায়!

৬. কফ বা খুসখুসে কাশি উপশমে আদা-চায়ে আছে প্রাকৃতিক নিরাময় উপাদান।
৭. খাবারে অরুচি দূর করতে সাহায্য করে। হজমে সহায়ক এনজাইমগুলো নিঃসরণ ঘটিয়ে খাদ্য পরিপাকেও সহায়তা করে আদা।
৮.আদাতে উচ্চমাত্রায় অ্যান্টি অক্সিডেন্ট রয়েছে যা রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে সাহায্য করে৷

৯. আদাতে ভিটামিন, খনিজ ও অ্যামিনো অ্যাসিড রয়েছে। এটি রক্ত সঞ্চালন-প্রক্রিয়া উন্নত করে হৃদযন্ত্রকে সুস্থ রাখে। পাশাপাশি আদার রস ধমনিতে চর্বি জমতে বাধা দেয়। ফলে প্রতিদিন আদা-চা পান করলে হার্ট অ্যাটাক ও স্ট্রোকের ঝুঁকি অনেকটাই কমবে। দেহে রক্ত সঞ্চালন ঠিকঠাক হলে শরীর সুস্থ থাকে। তাই নিয়মিত আদা-চা খান।
১০. অম্লতার বিরুদ্ধে খুব ভালো লড়তে পারে আদা-চা।

১১.গায়ে, হাত ও পায়ে ব্যথা বা মাথার যন্ত্রণা থাকলে আদা-চা খান। আদাতে ভিটামিন সি, ম্যাগনেশিয়ামসহ অনেক গুরুত্বপূর্ণ খনিজ উপাদান রয়েছে যা শরীরে প্রদাহ কমাতে সাহায্য করে৷ এগুলি একই সঙ্গে ব্যাথা নাশক হিসেবেও কাজ করে৷ আদা চা খাওয়ার পাশাপাশি এটি গাঁটের ব্যাথায় প্রলেপ হিসেবে লাগাতেও পারেন, উপকার পাবেন৷

১২.অ্যালার্জি, সর্দির সমস্যা বা হার্টের সমস্যা থাকলেও এক কাপ চা সমাধান হিসেবে কাজ করবে।

১৩. শ্বাসতন্ত্রের রোগ মোকাবিলাসহ, সাধারন সর্দি-কাশি নিরাময়ে আদা অত্যন্ত কার্যকরী ভুমিকা পালন করে৷ অ্যালার্জির কারণে শ্বশনতন্ত্রের সমস্যা হলে আদা চা পানে সুফল পেতে পারেন৷

১৪. মাসিকচক্রের ফলে সৃষ্ট প্রদাহ কমাতে সাহায্য করে আদা৷ যে মহিলারা মাসিকের সময় শারীরিক যন্ত্রণায় ভোগেন আদা তাদের ক্ষেত্রেও উপকারি এক উপাদান৷ আদা মিশ্রিত গরম চায়ে কাপড় ভিজিয়ে নিংড়ে নিন৷ এর পর তা দিয়ে তল পেটে সেঁক দিলে ব্যাথা কম হবে এবং এটি মাংসপেশীকে আরাম দেবে৷ এছাড়াও আদা চায়ে মধু মিশিয়ে খেলেও উপকার পাবেন৷

যে কোনো রান্নায় ব্যবহৃত হয় আদা৷ এই গুরুত্বও অপরিসীম৷ সাধারন সর্দি-কাশির ঘরোয়া চিকিৎসায় প্রথমেই আসে আদার নাম৷ তেমন আমরা প্রত্যেকেই চায়ের সঙ্গে আদার রস মিশিয়ে খেয়ে থাকি৷ এতে কিন্তু রয়েছে অনেক উপকারিতা যা আমরা উপরের আলোচনা থেকে জানলাম ,ধন্যবাদ।

আরও পড়ুনঃ   ইপসম সল্ট কী? ইপসম সল্টের উপকারিতা, ব্যবহার এবং ক্ষতিকর দিক---

আরও পড়ুন : আদা চা? এক কাপ আদা-চায়ের এত গুণ!

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

19 − four =