যে ৭ টি খাবার পুরুষের টেস্টোস্টেরন হরমোনকে প্রাকৃতিকভাবে বৃদ্ধি করবে

0
204
যে ৭ টি খাবার পুরুষের টেস্টোস্টেরন হরমোনকে প্রাকৃতিকভাবে বৃদ্ধি করবে
যে ৭ টি খাবার পুরুষের টেস্টোস্টেরন হরমোনকে প্রাকৃতিকভাবে বৃদ্ধি করবে

 

টেস্টোস্টেরন মানব শরীরের অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ একটি হরমোনের নাম।

এই হরমোন পুরুষের প্রজনন টিস্যু যেমন টেস্টিস ও প্রোস্টেটের বিকাশে খুব গুরুত্বপূর্ণ ‍ভূমিকা পালন করে।এই হরমোন মূলত পুরুষের অণ্ডকোষ এবং মহিলাদের ডিম্বাশডয়ে উৎপাদিত হয়।

শরীরের চুল বৃদ্ধি, হাড় ও ভর পেশি বৃদ্ধির মতো গৌণ বৈশিষ্টগুলোকেও উন্নীত করে এই হরমোন। ছেলেদের বয়ঃসন্ধিকালে শারীরিক পরিবর্তনের (পেশী বৃদ্ধি, গভীর কণ্ঠস্বর, চুলের বৃদ্ধি) মূল চলক টেস্টোস্টেরন হরমোন।

শারীরিক অক্ষমতা, দুর্বলতা, ডিপ্রেশন, ওজন বৃদ্ধি, চুলপড়া নিম্নকর্ম ক্ষমতা  এই সকল বিষয়ে টেস্টোস্টেরন হরমোন ভূমিকা রাখে।

পুরুষের টেস্টোস্টেরন হরমোনকে প্রাকৃতিকভাবে বৃদ্ধি করবে
পুরুষের টেস্টোস্টেরন হরমোনকে প্রাকৃতিকভাবে বৃদ্ধি করবে

বয়স বাড়ার সাথে সাথে পুরুষের শরীরে টেস্টোস্টেরন হরমোনের পরিমাণ কমা শুরু করে। যার ফলে পুরুষের শরীরে বিভিন্ন প্রকারের সমস্যা দেখা দেয় যেমন : লিঙ্গোত্থানে সমস্যা ,স্মৃতিশক্তি হ্রাসের পাশাপাশি কামবাসনা কমে যাওয়া, অনেক বেশী পরিমানে চুল পড়া, মেজাজ খিটখিটে হওয়া, মনোযোগের অভাব দেখা দেয়।

এই সমস্যাগুলো থেকে মুক্তি পেতে এবং টেস্টোস্টেরন হরমোনের পরিমান বাড়াতে নিয়মিত কিছু খাবার খাওয়ার অভ্যাস করলেই উপকৃত হওয়া যায়।

টেস্টোস্টেরন হরমোন বৃদ্ধি করে যেসব খাবার।

টেস্টোস্টেরন হরমোন বৃদ্ধি করে যেসব খাবার
টেস্টোস্টেরন হরমোন বৃদ্ধি করে যেসব খাবার

ডিম

ডিম
ডিম

ডিম আমাদের সকলের জন্য অনেকটা সুপার ফুডের মতো । সারা বিশ্বে ধনী-গরীব সবার কমন খাবার হিসেবে ডিম প্রায় প্রতিদিন ই আমাদের খাবারের তালিকায় থাকে। ডিমে রয়েছে স্যাচারেইটেড ফ্যাট, ওমেগা থ্রিএস, ভিটামিন ডি, কলেস্টেরল এবং প্রোটিন। এই সকল উপাদান টেস্টোস্টেরন হরমোন তৈরির জন্য অনেক গুরুত্বপূর্ণ।

তাই প্রতিদিন ১ বা ২ টি করে ডিম খাওয়ার অভ্যাস আপনার টেস্টোস্টেরন হরমোন বৃদ্ধি করবে।

 কলা

কলা
কলা

কলা খাইনা এমন মানুষ অনেক কমই আছে। কলা সকলের অনেক প্রিয় একটি খাবার।

কলায় রয়েছে ব্রোমেলেইন এনজাইম যা টেস্টোস্টেরনের মাত্রা বাড়াতে অনেক সাহায্য করে। আর দীর্ঘ সময় ধরে শরীরের এনার্জি সরবরাহের ভুমিকায় কাজ করে।

তাই প্রতিদিন ১ বা ২ টি করে কলা খাওয়ার অভ্যাস গড়ে তুলন।

আরও পড়ুনঃ   পুরুষের দুর্বলতা

মধু

মধু

সুপার ফুড হিসেবে মধুর অনেক সুনাম রয়েছে। প্রকৃতির মাঝে মহান স্রষ্টা মানব জাতির জন্য এক বিশাল নিয়ামত দিয়েছেন। মধু অনেক গুনে গুণান্বিত একটি খাদ্য । মধুতে প্রায় ৪৫টি খাদ্য উপাদান থাকে। ১০০ গ্রাম মধুতে থাকে প্রায় ২৮৮ ক্যালরি।

মধুতে রয়েছে প্রাকৃতিক নিরাময়কারী উপাদান বোরোন। এই খনিজ উপাদান টেস্টোস্টেরনের পরিমাণ বাড়াতে এবং নাইট্রিক অক্সাইডের মাত্রা ঠিক রাখে। যা ধমনী সম্প্রসারণ করে লিঙ্গোত্থানে শক্তি সঞ্চার করে। যা পুরুষের জন্য অনেক উপকারী হিসেবে প্রাচীনকাল থেকেই প্রমান হয়ে আসছে।

এছাড়া মধু  হজমে সহায়তা করে, কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করে, রক্তশূন্যতা দূর করে এবং পাকস্থলী সুস্থ রাখে।

মাংস

মাংস
মাংস

পুরুষের শরীরে টেস্টোস্টেরন হরমোন বৃদ্ধির জন্য মাংস খুবই উপকারী। কিছু পুরুষ আছে যারা একদমই মাংস খায় না তাদের টেস্টোস্টেরন হরমোন পরিমাণে কম থাকে। যত ভালো খাবারই হোক না কেন মাত্রাতিরিক্ত কোন কিছু শরীরের জন্য ভালো না ,তাই অতিরিক্ত মাংস খাওয়া থেকে সাবধান।

কাঠবাদাম

কাঠবাদাম
কাঠবাদাম.

কাঠবাদাম খেতে কমবেশি আমরা সবাই ভালোবাসি। পুষ্টিগুণে ভরপুর কাঠবাদামে রয়েছে ভিটামিন ই, কপার, সেলেনিয়াম, ক্যালসিয়াম, জিংক,  আয়রন ও ম্যাগনেসিয়াম যা আমাদের শরীরের জন্য অনেক গুরুত্বপূর্ণ।

নারী এবং পুরুষ উভয়ের ‘সেক্স ড্রাইভ’য়ের জন্য প্রতিদিন এক মুঠো কাঠবাদাম যথেষ্ট। এই বাদামে থাকা জিংক টেস্টোস্টেরন হরমোন বাড়ায় আর কামবাসনা বৃদ্ধি করে। এবং বাকি উপাদান গুলো শরীরকে হেলদি রাখতে সাহায্য করে।

 তৈলাক্ত মাছ

তৈলাক্ত মাছ
তৈলাক্ত মাছ

আমরা সবাই সমুদ্রের মাছ খেতে অনেক ভালোবাসি। সমুদ্রের মাছ খেতে যেমন সুস্বাদু তেমনি পুষ্টি গুনে ভরপুর। সমুদ্রের তৈলাক্ত মাছে প্রচুর পরিমাণে পুষ্টি রয়েছে, যেমন: ওমেগা ৩ ফ্যাটি অ্যাসিড, ভিটামিন ডি, জিংক ও প্রোটিন। এইসকল পুষ্টি পুরুষের শরীর ব্যাল্যান্স রাখে। তৈলাক্ত মাছে রয়েছে স্বাস্থ্যকর চর্বি যা টেস্টোস্টেরন হরমোন বৃদ্ধিতে সাহায্য করে।

কফি

কফি
কফি

কফি  বিশ্বব্যাপী খুবই জনপ্রিয় পানীয়। কফি গরম এবং ঠান্ডা দুভাবেই খাওয়া যায়। কফির রয়েছে বিশেষ কিছু গুণ, যা মানুষের স্বাস্থ্যের সুরক্ষায় সহায়ক।

আরও পড়ুনঃ   চমকে যাওয়ার মতো কাঠ বাদামের উপকারিতা ও খাওয়ার নিয়ম - নিজেকে রাখুন চিরসবুজ

কফি পুরুষের যৌন ইচ্ছা বাড়াতে অনেক গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে। কফিতে থাকা ক্যাফেইন পুরুষের যৌন ইচ্ছা  সক্রিয় রাখে। এবং উত্তেজনা বাড়াতে দারুন ভূমিকা রাখে। নিয়মিত কফি খাওয়ার অভ্যাস আপনার শরীরকে সক্রিয় রাখতে দারুন কাজ করবে।

তবে পরিমানের বেশী কফি খাওয়া মোটেও উচিৎ না কারণ এতে করে মূত্রথলি ক্ষতিগ্রস্থ হয় এবং যৌন  থাইরয়েড হরমোন ভারসাম্যহীনতা হারায়।

আশা করি এই লিখাটি আপনাদের উপকারে আসবে এবং সুস্থ এবং সুন্দর জীবনে সাহায্য করবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

2 × 4 =