চীনা বাদাম এর উপকারিতা: চীনাবাদামের গুণাগুণ/ চীনা বাদামের পুষ্টিগুণ!

0
52
চীনা বাদামের পুষ্টিগুণ
চীনা বাদামের পুষ্টিগুণ

চীনা বাদাম এর ১৬টি স্বাস্থ্য উপকারিতাঃ

চীনা বাদাম সব বয়সের মানুষের জন্য একটি স্বাস্থ্যকর খাবার। অনেক সময় শখ করে খাওয়া হয়, তবে এর উপকারিতা সম্পর্কে জানলে প্রতিদিনের খাদ্যতালিকায় এই বাদামকে অন্তর্ভুক্ত করতে চাইবেন। এটি শরীরের অনেক উপকার করতে সক্ষম। এটি পুষ্টিকর এবং খেতে ভালো। আসুন জেনে নেই চীনা বাদামের স্বাস্থ্য উপকারিতা তথা চীনা বাদামের পুষ্টিগুণ কি কি।

চীনা বাদাম এর উপকারিতা
চীনা বাদাম এর উপকারিতা

প্রতি ১০০ গ্রাম কাঁচা চিনাবাদাম কী পরিমাণ পুষ্টি থাকে?

গঠন সংখ্যা প্রতিদিনের হারের%
চর্বি 44 – 46 ছ 62,8
প্রোটিন 25 – 27 গ্রাম 36,3
শর্করা 10 গ্রাম 3,4
সেলুলোস 8.1 ছ 32,4
ফলমধ্যে প্রাপ্ত শালিজাতীয় পদার্থবিশেষ 4 গ্রাম 80,0
বি 1 – থায়ামাইন 0.7 মিলিগ্রাম 40,6
বি 2 – রাইবোফ্লাভিন 0.1 মিলিগ্রাম 6,1
বি 4 – কোলিন 52, 5 মিলিগ্রাম 10,5
বি 5 – পেন্টোথেনিক অ্যাসিড 1.8 মিলিগ্রাম 35
বি 6 – পাইরিডক্সিন 0.3 মিলিগ্রাম 17
বি 9 – ফলিক এসিড 240 এমসিজি 60
সি – অ্যাসকরবিক অ্যাসিড 5.3 মিলিগ্রাম 5,9
ই – টোকোফেরল 10 মিলিগ্রাম 61,5
পিপি – নিকোটিনিক অ্যাসিড 13, 2 মিলিগ্রাম 60
পটাসিয়াম 705 মিলিগ্রাম 27,5
ক্যালসিয়াম 92 মিলিগ্রাম 7,5
সিলিকোন 80 মিলিগ্রাম 266,7
ম্যাগ্নেজিঅ্যাম্ 180 মিলিগ্রাম 43,5
ভোরের তারা 350 মিলিগ্রাম 45,6
লোহা 5 মিলিগ্রাম 32
ম্যাঙ্গানীজ্ 1934 এমসিজি 96,7
তামা 1100 এমসিজি 112,2
দস্তা 3270 এমসিজি 27,3

এই জনপ্রিয় খাদ্য পণ্যটি অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট এবং অসম্পৃক্ত ফ্যাটি অ্যাসিড সমৃদ্ধ এবং এতে কোন কোলেস্টেরল নেই বললেও চলে। কাঁচা বাদামে ক্যালোরির পরিমাণ বেশি – প্রতি ১০০ গ্রামে ৫৫০ কিলোক্যালরির বেশি এবং শুকিয়ে গেলে এগুলি এক ডজন শতাংশ বৃদ্ধি পায় কারণ এতে প্রচুর পরিমাণে পানি থাকে।

আরো পড়ুনঃ বাদামের পুষ্টিগুণ-কোন বাদামে কী উপকারিতা?

চিনাবাদামের উপকারিতা

চিনাবাদাম বিভিন্ন ক্ষেত্রে ব্যবহারের জন্য সুপারিশ করা হয়। দরকারী বৈশিষ্ট্য:

  • কোলেস্টেরল কমায় চিনা বাদামঃ শরীরে অতিরিক্ত কোলেস্টেরল হৃদরোগ, উচ্চ রক্তচাপ, ওজন বৃদ্ধি এবং ডায়াবেটিসের মতো মারাত্মক রোগের কারণ হয়। বাদামের অসাধারণ কার্যকরী চর্বি উপাদান শরীর থেকে কোলেস্টেরল কমাতে সাহায্য করে। তাছাড়া এই বাদাম শরীরের চর্বি কমাতেও সাহায্য করে। শরীরে কোলেস্টেরল কমাতে প্রতিদিন এক মুঠো চীনা বাদাম খেতে পারেন।
  • জিনিটোরিনারি সিস্টেমে ইতিবাচক প্রভাব: চিনাবাদাম জিনিটোরিনারি সিস্টেমের কার্যকারিতার উপর ইতিবাচক প্রভাব ফেলে, স্মৃতিশক্তি, ঘনত্ব উন্নত করে যা বয়স্কদের জন্য বিশেষভাবে কার্যকর কারণ পণ্যটিতে নিকোটিনিক অ্যাসিড রয়েছে। এটি ফলিক অ্যাসিড এবং ভিটামিন ই দ্বারা ত্বকের পুনর্জন্মকেও উৎসাহিত করে।
  • শারীরিক ক্লান্তিতে উপকারী: এটি দীর্ঘস্থায়ী ক্লান্তি, নিউরোসিস, বিষণ্ণতা এবং শারীরিক ক্লান্তিতে উপকারী।
  • ডায়াবেটিস প্রতিরোধে সাহাজ্য করেঃ পরিমিতভাবে, এটি ডায়াবেটিসের জন্য দরকারী কারণ এটি রক্তে শর্করাকে নিয়ন্ত্রণ করে। রাতে ১০-১৫টি বাদাম পানিতে ভিজিয়ে রেখে সকালে খেলে ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে রাখা যায়। চাইনিজ বাদামের অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট ডায়াবেটিস দূর করতে বিশেষভাবে কার্যকর। এছাড়াও, চীনা বাদাম রক্তে সুক্রোজের মাত্রা কমায়।
  • পেশী গঠনে সাহায্য: এর উচ্চ প্রোটিন পেশী গঠনে সাহায্য করে।
  • ভিটামিন-ই: ভিটামিন ইকে ধন্যবাদ, এটি অনকোলজি প্রতিরোধের এবং টিস্যু পুনরুত্থানকে ত্বরান্বিত করার একটি দুর্দান্ত উপায়।
  • অ্যান্টিঅক্সিডেন্টস: এতে প্রচুর পরিমাণে অ্যান্টিঅক্সিডেন্টস (পলিফেনলস) রয়েছে, যা টক্সিন অপসারণে সহায়তা করে।
  • রক্ত জমাট বাঁধার উন্নতি: এটি রক্ত জমাট বাঁধার উন্নতি করতে সক্ষম।
  • ইতিবাচক আবেগ নিয়ন্ত্রণ: এর উপাদান ট্রিপটোফ্যানের জন্য ধন্যবাদ, এটি ঘুমকে স্বাভাবিক করে তোলে এবং সেরোটোনিন তৈরি করতে সাহায্য করে, যা ইতিবাচক আবেগে অবদান রাখে।
  • ওজন কমাতে বেশ কার্যকরীঃ প্রতিদিনের খাদ্যতালিকায় এক মুঠো বাদাম যোগ করলে অতিরিক্ত ওজনের সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়া যাবে। তাছাড়া এটি আপনার শরীরের শক্তি বাড়াতেও সাহায্য করে।
  •  স্মৃতি শক্তি বাড়াতে সাহায্য করেঃ চাইনিজ বাদামে প্রচুর পরিমাণে B3 থাকে যা মস্তিষ্কের সুস্বাস্থ্য নিশ্চিত করে। কিছু লোকের স্মৃতিশক্তি অন্যদের তুলনায় তুলনামূলকভাবে কম। অল্প বয়সেই মস্তিষ্কের সমস্যায় ভোগেন অনেকেই। ছোট ছোট জিনিস ভুলে যাওয়া এবং অনেক চেষ্টা করেও মনে করতে পারে না। এটি ঘটে যখন আমাদের মস্তিষ্ক পর্যাপ্ত পুষ্টি পায় না। চীনা বাদাম মস্তিষ্কের জন্য খাদ্য হিসাবে বিবেচিত হতে পারে। চাইনিজ বাদামে প্রচুর পরিমাণে B3 থাকে যা সুস্বাস্থ্য স্বাস্থ্য নিশ্চিত করে। তাই প্রতিদিন চাইনিজ বাদাম খান, যাতে আপনি একটি স্বয়ংক্রিয় মস্তিষ্ক পেতে পারেন। অন্য কথায়, চীনা বাদাম স্মৃতিশক্তি বাড়ায়। এতে রয়েছে প্রচুর আয়রন ও জিঙ্ক। এই দুটি উপাদান আমাদের শরীরের স্বাস্থ্য বজায় রাখে এবং আমাদের মেধা বৃদ্ধিতে অনেক বেশি সহায়ক। তাই বাদাম ভ্রূণ, বাড়ন্ত শিশু, প্রাপ্তবয়স্কদের জন্য উপকারী খাবার। যেসব শিশুদের ঘন ঘন ডায়রিয়া হয় তাদের জন্যও বাদাম একটি অপরিহার্য খাবার। কারণ চিনাবাদামে থাকা প্রচুর জিঙ্ক ডায়রিয়ার পর সমস্যা দূর করতে সাহায্য করে।
  •  রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়ঃ শরীরে সঠিক পরিমাণে পুষ্টি না থাকলে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা দুর্বল হয়ে পড়ে। চীনা বাদামের অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট গুণাগুণ শরীরের মারাত্মক রোগ প্রতিরোধে সাহায্য করে। তাই শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে প্রতিদিন চাইনিজ বাদাম খান।
  • রক্তের শর্করা নিয়ন্ত্রণে রাখে: চিনাবাদাম রক্তে শর্করার মাত্রা নিয়ন্ত্রণে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। সকালের নাস্তায় চিনাবাদাম বা পিনাট বাটার (চিনাবাদামের মাখন ) খাওয়া সারাদিন রক্তে শর্করার মাত্রা নিয়ন্ত্রণে রাখতে সাহায্য করে।
  • চীনা বাদাম ত্বক ও চুলকে মসৃণ করে: চীনা বাদামে খনিজ লবণ ম্যাগনেসিয়াম থাকে। এই উপাদানটি ত্বক ও চুলকে উজ্জ্বল ও মসৃণ করার পাশাপাশি আপনাকে প্রাণশক্তি দেয়। এটি দাঁত ও মাড়িকেও মজবুত রাখে।
  • চিনাবাদাম ব্লাড সুগার নিয়ন্ত্রণে রাখে: গবেষণায় দেখা গেছে, এক বেলা খাবারে গুরু ও খাসির মাংসের জায়গায় চীনা বাদাম দিলে ডায়াবেটিসের প্রকোপ ২১ শতাংশ কমে যায়। আমরা যদি সকালের নাস্তায় কিছু বাদাম খাই তবে তা আমাদের রক্তে শর্করাকে নিয়ন্ত্রণে রাখতে সাহায্য করবে। তাই ডায়াবেটিস রোগীদের জন্য বাদাম খুবই উপকারী একটি খাবার। তাই প্রতিদিন সকালের নাস্তায় বাদাম রাখা দরকার।
  • স্লিম ফিগারে সহায়ক: চীনা বাদাম খাওয়ার পরিমাণ নিয়ন্ত্রণ করে। চিনাবাদাম খেলে আপনার পেট সহজে ভরে যায় বা সহজে ক্ষুধা লাগে না। চিনাবাদামে শুধু চর্বিই বেশি থাকে না, ফাইবার এবং প্রোটিনের পরিমাণও বেশি থাকে, যা সকালের নাস্তায় কিছু বাদাম খেলে বা বাদাম জাম খেলে সারাদিনের খাবারের পরিমাণ কমিয়ে দিতে পারে। এটি আপনাকে স্লিম থাকতে দেবে।
আরও পড়ুনঃ   নিজের রক্তের গ্রুপ অনুযায়ী সঠিক খাবারটি খাচ্ছেন তো?

চিনাবাদামের সমস্ত স্বাস্থ্য উপকারিতা উপভোগ করতে, আপনাকে অবশ্যই প্রতিদিন এক মুঠো চিনাবাদাম খেতে হবে। চাইনিজ বাদাম আপনাকে স্বাস্থ্যকর জীবনযাপনে বিশেষভাবে সাহায্য করবে। চীনা বাদাম এর উপকারিতা/ চীনাবাদামের গুণাগুণ/ চীনা বাদামের পুষ্টিগুণ! প্রবন্ধটি এখানেই শেষ হল।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

one + 16 =