গরম চা-কফি খেয়ে জিভ পুড়ে গেলে করণীয়

0
158
গরম চা-কফি,চা-কফি,জিভ পুড়ে গেলে

চা-কফি বা গরম খাবার খেতে গিয়ে অসতর্কতাবশত অনেক সময় জিহ্বা পুড়ে যায়, এটা খুবই স্বাভাবিক ঘটনা। আর পুড়ে যাওয়ার পর জিহ্বা জ্বালাপোড়া করে এবং সহজে কমতেও চায় না।

এ থেকে অনেক সময় মুখে শুকনোভাব, পানিশূন্যতা ইত্যাদি তৈরি হয়। দেখা দেয় অস্বস্তি। এরকম পরিস্থিতিতে কিছু ঘরোয়া পদ্ধতি অবলম্বন করে মিলতে পারে সাময়িক স্বস্তি।

১. কফি-চা পানে যদি জিহ্বা পুড়ে যায় তাহলে সাথে সাথে ঠান্ডা পানি মুখে নিয়ে কুলি করুন। এটা কয়েকবার করতে হবে।

২. আক্রান্ত স্থানে সরাসরি বরফের টুকরো লাগানো যেতে পারে। পাশাপাশি মুখের মধ্যে ঠাণ্ডা পানি দিয়ে কুলিকুচি করা যেতে পারে। এভাবে সারা দিন কয়েকবার করা যেতে পারে।

৩. আক্রান্ত স্থানে মধু লাগাতে পারেন কারণ মধুর মধ্যে রয়েছে অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল ও প্রদাহরোধী উপাদান।

এতে জ্বালাপোড়াভাব ও প্রদাহ কমবে। পাশাপাশি এটি পরবর্তী সময়ে মুখে ব্যাকটেরিয়ার বৃদ্ধি প্রতিহত করবে।

৪. অ্যালোভেরা যে কোনো প্রকার ব্যথা কমাতে সহায়ক। জিহ্বা বা তালুর ক্ষতস্থানে লাগান এবং জিহ্বার ভেতরে একটি ঠাণ্ডা ঠাণ্ডা ভাব আনবে। অ্যালোভেরা জেল মুখের মধ্যে ২৫ মিনিট রেখে দিতে হবে। দিনে কয়েকবার এটি করা যেতে পারে।

৪. মুখ দিয়ে শ্বাস নিন জিহ্বা পুড়ে গেলে। এতে জিহ্বায় শীতলতা পাবেন এবং পোড়া ভাব দ্রুত সেরে উঠবে।

৫. যথাসম্ভব ঠান্ডা জিনিস খাবেন, জিহ্বা পুড়ে যাওয়ার ক্ষেত্রে দই খুব উপকারী। এটি দ্রুত শীতলতা প্রদান করে।

৬. ফাইবার বা আঁশ জাতীয় খাবার খাওয় উচিত যা, পোড়ার ওপর পাতলা প্রলেপ তৈরি করে যা থেকে মুখের জ্বালা রোধ হয়। তবে এতেও যদি ব্যথা না কমে তবে চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে। কোনভাবেই ডাক্তারের পরামর্শ ছাড়া কোনও অয়েনমেন্ট ব্যবহার করা যাবে না।

সৌন্দর্য বাড়ায় চা-কফি

আরও পড়ুনঃ   অর্শ বা পাইলসের সমস্যা সমাধানে ঘরোয়া ১০ উপায়!

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

18 − seven =