গরমের দিনে ঠান্ডা পানি শরীরের যেসব মারাত্মক ক্ষতি করে

0
55
গরমের দিনে ঠান্ডা পানি শরীরের জন্য যেসব মারাত্মক ক্ষতি করে

গরমের দিনে ঠান্ডা পানি পান করতে বার বার নিষেধ করছেন বিশেষজ্ঞরা। কারণ এতে একাধিক স্বাস্থ্য সমস্যা দেখা দেয়। যেমনঃ শরীরের ওজন বেড়ে যায়, হজমের সমস্যা আসে এছাড়াও গরমের দিনে বাড়ে স্ট্রোকের সম্ভাবনাও…

Young man has heart attack isolated on white background. Free Photo

প্রতিদিন বাড়ছে তাপমাত্রা। বাড়ছে গরম। এ সময় পানির পিপাসায় গলা শুকিয়ে যায় প্রায়ই। পানির চাহিদা থাকে বেশী। নরমাল পানির চেয়ে ফ্রিজের পানির প্রতি আমাদের আগ্রহ থাকে অনেক বেশী।

গরম পড়তেই ফ্রিজে ঠান্ডা পানি রাখার (Cold Water) অভ্যাস শুরু হয়ে যায় বাড়িতে বাড়িতে, রোদ থেকে ফিরে ঠান্ডা পানীয়তে গলা না ভেজালে যেন আর চলছেই না।

নুন-চিনি-লেবু সহযোগে শরবত খাওয়ার চল এখন প্রায় উঠেই গিয়েছে। পরিবর্তে প্রায় সকলেই পছন্দ করছেন নরম ঠান্ডা পানীয়। ছাড়াও থাকে ঘোল, লাচ্ছি, ফলের রস ও নানারকমের জুস। তবে নরম পানীয় (Soft Cold Drink) কিন্তু শরীরের জন্য মোটেই উপকারী নয়। কারণ এই সব পানীয়ের মধ্যে থাকে প্রচুর পরিমাণে চিনি। যা আমাদের অজান্তেই শরীরে শর্করার পরিমাণ বাড়িয়ে দেয়। হঠাৎ রোদ থেকে বাড়িতে ফিরে ঠান্ডা কিছু খেলে আরাম লাগে ঠিকই কিন্তু বিশেষজ্ঞরা বলছেন এই ঠান্ডা পানি শরীরের জন্য কিন্তু আদৌ উপকারী নয়। বরং আসতে পারে একাধিক স্বাস্থ্য সমস্যা (Health Problem)।

Silhouette of a young fitness man running on sunrise Free Photo

আর তাই রোদ থেকে ফিরেই সাথে সাথে কিন্তু ফ্রিজ খুলে ঠান্ডা পানি খাবেন না, বরং ফ্যানের তলায় ঘাম শুকিয়ে শরীরের তাপমাত্রা কমে ঘরের তাপমাত্রায় এলে তারপরই পানি পান করুন। বিশেষজ্ঞদের মতে, অতিরিক্ত ঠান্ডা পানি খেলে তার মারাত্মক প্রভাব পড়ে দাঁতের ভেগাস নার্ভের উপর। এই ভেগাস স্নায়ু হল আমাদের স্নায়ুতন্ত্রের অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ একটি অংশ। এবং এর সঙ্গে যোগ রয়েছে হৃৎপিন্ডের। তাই বেশি ঠান্ডা জল খেলে ভেগাস স্নায়ু উদ্দীপিত হয়ে ওঠে। যার ফলে হৃদগতি অনেকটাই কমে যেতে পারে। যে কারণে সানস্ট্রোকের সম্ভাবনা থেকে যায়।

আরও পড়ুনঃ   শীতে ঠান্ডা পানিতে গোসলে যত উপকার

Appointment at psychologist Free Photo

এছাড়াও অতিরিক্ত ঠান্ডাজল খেলে রক্তনালী সংকুচিত হয়ে পড়ে। ফলে শরীরের বিভিন্ন অংশে রক্ত সঞ্চালনও কিন্তু বন্ধ হয়ে যেতে পারে। আর এই সমস্যা এড়াতেই ঠান্ডা জল খাওয়া থেকে বিরত থাকুন।

গরম থেকে এসে হঠাৎ করে ঠান্ডা জল খেলে সর্দি-কাশির মতো বিভিন্ন সমস্যা বাড়ে। অতিরুক্ত শ্লেষ্মা জমতে পারে। শ্বাসনালীতে এই শ্লেষ্মা যদি দিনের পর দিন জমে তাহলে সেখান থেকে কঠিন সংক্রমণের সম্ভাবনা থেকে যায়।

Aching ill man with scarf around neck wearing winter hat wrapped in plaid coughing keeping fist close to mouth sitting on couch at living room Free Photo

কোনও খাবার খাওয়ার পরও কিন্তু সাথে সাথে ঠান্ডা পানি বা আইসক্রিম, কোল্ড ড্রিংক খাওয়া উচিত নয়। এতে খাবার হজম হতে বেশি সময় লাগে। কারণ শরীর হঠাৎ ঠান্ডা হয়ে গেলে হজমে সাহায্যকারী উৎসেচক ঠিকমতো কাজ করে না। ফলে তখন হজম প্রক্রিয়া শুধু যে ধীর হয়ে যায় তাই নয়, থেকে যায় বদহজমের সম্ভাবনাও।

Coconut ripe and tasty isolated on white Premium Photo

আর তাই ব্যায়ামের ঠিক পরে বা খুব রোদ-গরম থেকে আসলে ফ্রিজ খুলে ঠান্ডা পানি একেবারেই খাওয়া উচিত নয়। এতে হৃদরোগের সম্ভাবনা যেমন বেড়ে যায় তেমনই শরীরের আভ্যন্তরীণও ক্ষতি হয়। আর নিয়মিত ভাবে ঠান্ডা পানি খাওয়ার অভ্যাস আমাদের ওজন বাড়িয়ে দেয়। রোদের দিনে চেষ্টা করুন বাড়িতেই বিভিন্ন শরবত বানিয়ে খেতে। আমের শরবত, বেলের পানি, লাচ্ছি, ডাবের পানি এসব কিন্তু শরীরের জন্য খুবই ভাল

https://bdhealth.org ভিজিট করার জন্য আপনাকে আন্তরিক ধন্যবাদ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

15 + 6 =